ঢাকা ০৪:৩২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
বাউফল কাশিপুরের অদম্য ১০ ব্যাচের বন্ধুমহলের ইফতার ও দোয়া অনুষ্ঠিত দুমকিতে ১ হাজার অসহায় পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরন অয়ন ওসমানের নেতৃত্বে নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগের ইফতার বিতরন বন্দরে আওয়ামীলীগ নেতা গোলজারে অত্যাচারে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ দুমকিতে কালবৈশাখী ঝড়ের তাণ্ডবে গাছপালা ও ঘরবাড়ির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি দুমকিতে চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর তহবিলের চাল লোপাট জামায়াতে ইসলামীর উদ্যোগে অসহায় সুবিধা বঞ্চিত মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ আদালতে হাজির থেকেও স্কুলের হাজিরা খাতায় প্রধান শিক্ষকের উপস্থিতি দুমকিতে দীর্ঘদিন রাস্তার নির্মাণ কাজ বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে যাত্রী ও এলাকাবাসী খেপুপাড়াস্থ পটুয়াখালীতে অবস্থিত পেশাজীবীদের পরিচিতি সভা ও ইফতার পার্টি অনুষ্ঠিত

এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে রেজাউল নামের বিরুদ্ধে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৩৬:২৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৬ জুলাই ২০২৩ ২১৬ বার পড়া হয়েছে

 

রানা,নিজস্ব প্রতিবেদন (পটুয়াখালী)

পটুয়াখালীর জেলার দশমিনা উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের বাঁশবাড়িয়া গ্রামে মেয়েটি একই ইউনিয়নের মেমোরিয়াল গার্লস স্কুলের দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী( ১৫)ও বাঁশবাড়িয়া গ্রামের কবির হোসেন মৃধা(৫৫) এর মেয়ে।
সরেজমিন পরিদর্শন করে জানা যায়,
অভিযুক্ত রেজাউল হাওলাদার (৩৫) সে এক জন জুয়ারি, একই এলাকার রশিদ হাওলাদারের ছেলে।
জনাযায়, ২৩-০৭-২০২৩তাং রোজ শনিবার রাত ০৯ টার দিকে মেয়েটি তাদের বসত ঘরের পিছনে দিকে
কিছু জুয়ারিকে তাদের বাড়ির পেছনের বাগানে জুয়া খেলতে ছিলো তা মেয়েটির অজানা, মেয়েটি বাড়ির পেছনের পুকুর থেকে পানি আনতে যায় পানি নিয়ে আসার পথে এক ব্যাক্তি তাকে পেছন থেকে জড়িয়ে ধরে এবং সে ভয় পেয়ে চিৎকার করে পরে সে পেছনে তাকিয়ে রেজাউলকে দেখতে পায় পরে ঐ ব্যাক্তি তার মুখ চেপে ধরে তার সাথে জবরদস্তি করে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় পরে মেয়েটির চিৎকারের শব্দ শুনে জুয়ার আসরে বসা কয়েকজন লোক ছুটে আসলে রেজাউল হাওলাদার সেখান থেকে দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে মেয়ের বাবা ও স্বজনরা সেখানে উপস্থিত হলে সেখানে উপস্থিত থাকা বাকি জুয়ারিরা বিষয় টি ধামাচাপা দেওয়ায়ার চেষ্টা করলে মেয়েটি সব সত্যি কথা সকলকে বলে দেয়।
এ ঘটনার পরের দিন এলাকাবাসি মেয়ের বাবাকে থানায় অভিযোগ করতে বললেও মেয়ের বাবা সহজ সরল হওয়ায় কোনো আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করেন নাই।
এ ঘটনায় তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে একই গ্রামের আফরোজা নামে এক নারী বলেন এ ঘটনায় অভিযুক্ত রেজাউল হাওলাদারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া দরকার যাতে করে আর কোনো মানুষ রুপি পশুরা সমনের দিনগুলোতে এ ধরনের ঘটনা ঘটানোর সাহস না পায়। একই এলাকার মোঃসোহরাব হোসেন(৩২) বলেন এ ধরনে কাজ কোনো মানুষের দ্বারা হওয়া সম্ভব না এটা মানুষ রুপি জানোয়ারের কাজ আমরা গ্রামবাসি এ ঘটনার তিব্র নিন্দ জানাই ও রেজাউল নামে পশুর সঠিক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাই।

ঘটনার পরের দিন থেকে রেজাউল নামের ঐ ব্যক্তি পলাতক রয়েছেন তার সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করতে চাইলেও সম্ভব হয়নি।

বাসবাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃকাজী আবুল কালামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন এ বিষয়ে আমি কোনো অভিযোগ পাইনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে রেজাউল নামের বিরুদ্ধে

আপডেট সময় : ১২:৩৬:২৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৬ জুলাই ২০২৩

 

রানা,নিজস্ব প্রতিবেদন (পটুয়াখালী)

পটুয়াখালীর জেলার দশমিনা উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের বাঁশবাড়িয়া গ্রামে মেয়েটি একই ইউনিয়নের মেমোরিয়াল গার্লস স্কুলের দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী( ১৫)ও বাঁশবাড়িয়া গ্রামের কবির হোসেন মৃধা(৫৫) এর মেয়ে।
সরেজমিন পরিদর্শন করে জানা যায়,
অভিযুক্ত রেজাউল হাওলাদার (৩৫) সে এক জন জুয়ারি, একই এলাকার রশিদ হাওলাদারের ছেলে।
জনাযায়, ২৩-০৭-২০২৩তাং রোজ শনিবার রাত ০৯ টার দিকে মেয়েটি তাদের বসত ঘরের পিছনে দিকে
কিছু জুয়ারিকে তাদের বাড়ির পেছনের বাগানে জুয়া খেলতে ছিলো তা মেয়েটির অজানা, মেয়েটি বাড়ির পেছনের পুকুর থেকে পানি আনতে যায় পানি নিয়ে আসার পথে এক ব্যাক্তি তাকে পেছন থেকে জড়িয়ে ধরে এবং সে ভয় পেয়ে চিৎকার করে পরে সে পেছনে তাকিয়ে রেজাউলকে দেখতে পায় পরে ঐ ব্যাক্তি তার মুখ চেপে ধরে তার সাথে জবরদস্তি করে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় পরে মেয়েটির চিৎকারের শব্দ শুনে জুয়ার আসরে বসা কয়েকজন লোক ছুটে আসলে রেজাউল হাওলাদার সেখান থেকে দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে মেয়ের বাবা ও স্বজনরা সেখানে উপস্থিত হলে সেখানে উপস্থিত থাকা বাকি জুয়ারিরা বিষয় টি ধামাচাপা দেওয়ায়ার চেষ্টা করলে মেয়েটি সব সত্যি কথা সকলকে বলে দেয়।
এ ঘটনার পরের দিন এলাকাবাসি মেয়ের বাবাকে থানায় অভিযোগ করতে বললেও মেয়ের বাবা সহজ সরল হওয়ায় কোনো আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করেন নাই।
এ ঘটনায় তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে একই গ্রামের আফরোজা নামে এক নারী বলেন এ ঘটনায় অভিযুক্ত রেজাউল হাওলাদারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া দরকার যাতে করে আর কোনো মানুষ রুপি পশুরা সমনের দিনগুলোতে এ ধরনের ঘটনা ঘটানোর সাহস না পায়। একই এলাকার মোঃসোহরাব হোসেন(৩২) বলেন এ ধরনে কাজ কোনো মানুষের দ্বারা হওয়া সম্ভব না এটা মানুষ রুপি জানোয়ারের কাজ আমরা গ্রামবাসি এ ঘটনার তিব্র নিন্দ জানাই ও রেজাউল নামে পশুর সঠিক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাই।

ঘটনার পরের দিন থেকে রেজাউল নামের ঐ ব্যক্তি পলাতক রয়েছেন তার সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করতে চাইলেও সম্ভব হয়নি।

বাসবাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃকাজী আবুল কালামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন এ বিষয়ে আমি কোনো অভিযোগ পাইনি।