কবিরহাটে দুই অটোরিকশা চোরকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

কবিরহাটে দুই অটোরিকশা চোরকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

মোঃ মাসুদ রানা, নোয়াখালী প্রতিনিধিনোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার ধানসিঁড়ি ইউনিয়নের আমিন বাজারে দুই অটোরিকশা চোরকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী।

গতকাল (২৭ মার্চ) সন্ধ্যা ৭ টার দিকে চোর সন্দেহে ইমরান হোসেন সজীব (২১) ও মোঃ ফারুক নামের এ দু’জনকে আটক করে স্থানীয় বাসিন্দারা। ইমরান হোসেন সজীব ধানসিঁড়ি ইউনিয়নের জগদানন্দ গ্রামের মোঃ সেলিমের ছেলে। তার সাথে থাকা মোঃ ফারুক একই ইউনিয়নের জগদানন্দ গ্রামের আনিসুর রহমানের ছেলে।

চোর সন্দেহে দু’জনকে আটক করা চর এলাহী ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মোঃ মোস্তফা এ প্রতিবেদককে বলেন, গত কিছুদিন আগে আমাদের ইউনিয়নের অটোরিকশা চালক বেলালের রিকশাটিতে যাত্রীবেশে উঠে নির্জন স্থানে নিয়ে গলায় ছুরি ধরে তার রিকশাটি নিয়ে নিয়ে যায়, এই চোর চক্রের সদস্যরা। আজ আবারো তারা একই কায়দায় মোটরসাইকেল নিয়ে এসে চর এলাহী বাজারে ভাড়া রিকশা খুঁজতে থাকে, একপর্যায়ে সেখানে কোনো রিকশাওয়ালাকে ম্যানেজ করতে না পেরে তারা পাশের সুইস গেইট নামক বাজারে যায়, সেখানে গিয়েও তারা একেকবার একেক যায়গায় যাবে বলে রিকশাওয়ালাদের সাথে দরদাম করতে থাকে।

মোস্তফার সাথে থাকা রিকশা চালক বেলালের ভাই আমান উল্যাহ বলেন, তাদের সাথে মোটরসাইকেল থাকার পরও তারা যখন একেকবার একেক যায়গায় যাবে বলে রিকশাওয়ালাদের সাথে কথা বলে, তখন তাদের প্রতি আমাদের সন্দেহ আরও বাড়তে থাকে, একপর্যায়ে আমরা তাদের পিছু নিই। পথিমধ্যে তারা ধানসিঁড়ি ইউনিয়নের নবগ্রাম সংলগ্ন আমিন বাজারে এসে পৌঁছালে আমরা তাদের গতিরোধ করি। তাদের গতিরোধ করার পর তারা প্রথমে আমাদের দুজনের উপর হামলা করে, পরবর্তীতে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসতে থাকলে তারা পালানোর চেষ্টা করে, তবে লোকজন বেশি থাকায় তারা সেখান থেকে পালাতে ব্যার্থ হয়। পরে তাদেরকে আমিন বাজার পরিচালনা কমিটির অফিসে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা অটোরিকশা চুরির বিষয়টি স্বীকার করে।

ধানসিঁড়ি ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃ ইলিয়াস বলেন, অভিযুক্ত ফারুক ও সজীব জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, তারা ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি অটোরিকশা চুরি করেছে, তাদের দু’জনকে আটক করার পর আশেপাশের অন্তত বিশজন অটোরিকশা চালক এসে আমাদেরকে তাদের অটোরিকশা চুরির বিষয়ে জানিয়েছে। তিনি আরও বলেন, চোর আটক করার খবর চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে, বিভিন্ন দিক থেকে মানুষ এসে আমিন বাজারে জড়ো হতে থাকে, পরিস্থিতি খারাপ দেখে আমরা পুলিশে খবর দিলে পুলিশ এসে তাদেরকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কবিরহাট থানার এ এস আই কামাল উদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে দুই চোর কে আটক করি, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা নিজেদেরকে অটোরিকশা চোর চক্রের সদস্য বলে স্বীকার করেছে, এছাড়াও তারা তাদের সাথে থাকা আরও ৬ জনের নাম বলেছে যারা এই চক্রের সাথে জড়িত, যাদের নাম বলেছে তারা হলেন, ধানসিঁড়ি ইউনিয়নের জগদানন্দ গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে মোহন, একই গ্রামের হেদু মিয়ার ছেলে ফরহাদ, জামাল মিয়ার ছেলে পারভেজ, সাহাব উদ্দিনের ছেলে কামরুল। তবে তাদের সাথে থাকা অপর দুজন রিদন ও দিপুর গ্রামের নাম বলতে পারেনি এ দু’জন।

এ এস আই কামাল আরও বলেন, চোর ধরা পড়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে, বিভিন্ন যায়গা থেকে আসা ক্ষতিগ্রস্থ রিকশা চালকরা চোরদের উপর ক্ষেপে যায়, পরবর্তীতে জনরোষ থেকে তাদেরকে উদ্ধার করতে থানা থেকে অতিরিক্ত ফোর্স এনে আমরা দু’জনকে আটক করে নিয়ে আসি, জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *