কোম্পানিগঞ্জে ঢিলেঢালা ভাবে পালিত হচ্ছে সরকার ঘোষিত সর্বাত্মক লকডাউন

কোম্পানিগঞ্জে ঢিলেঢালা ভাবে পালিত হচ্ছে সরকার ঘোষিত সর্বাত্মক লকডাউন


নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালীর কোম্পানিগঞ্জে ঢিলেঢালা ভাবে পালিত হচ্ছে সরকার ঘোষিত সর্বাত্মক লকডাউন। করোনার প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় সারাদেশে আজ ১লা জুলাই থেকে সাত দিনের জন্য সর্বাত্মক লকডাউন ঘোষণা করে সরকার।

সরেজমিনে কোম্পানিগঞ্জের বিভিন্ন ইউনিয়ন ঘুরে দেখা যায় সর্বাত্মক লকডাউন চলাকালীন সময়ে মানুষ অকারণে এলোমেলো ভাবে এদিক সেদিক ঘুরাঘুরি করছে। বেশিরভাগ মানুষের মুখেই নেই মাস্ক, খোলা রয়েছে সবধরনের দোকানপাট। উপজেলার সিরাজপুর, চর পার্বতী, চর হাজারী,চর কাকড়া, রামপুর, মুছাপুর,চর ফকিরা, চর এলাহী ইউনিয়ন সহ সব ইউনিয়নেই দেখা গেছে একই চিত্র।

কোম্পানিগঞ্জের সচেতন মহলের মানুষেরা জানান, লকডাউন কার্যকর না হওয়ার বড় কারণ হলো এখানকার রাজনৈতিক অস্থিরতা। তারা বলেন, গত ছয়মাস যাবত কোম্পানিগঞ্জে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের দুপক্ষের মধ্যে রাজনৈতিক অস্থিরতা চলছে যার কারণে বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মেম্বার রা দুটি ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছেন। ফলে কেউ-ই লকডাউন কার্যকরে প্রশাসনকে সহযোগিতা করছেন না। আর এই সুযোগ টা-ই কাজে লাগাচ্ছে সাধারণ মানুষ, তারা যে যার মতো এদিক সেদিক চলাফেরা করছে কোনো ধরনের সুরক্ষা ব্যবস্থা ছাড়াই।

এছাড়াও উপজেলার একটি ইউনিয়নের যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন থাকায় সেখানকার পরিস্থিতি সবচেয়ে নাজুক দেখা গেছে। সে ইউনিয়নটি হলো কোম্পানিগঞ্জের সর্ব দক্ষিণের নদী বেষ্টিত চর এলাহী ইউনিয়ন। চর এলাহী ইউনিয়ন ঘুরে দেখা যায় সেখানকার বড় বড় বাজার গুলোয় সবধরনের দোকানপাট ই খোলা রয়েছে। মানুষজন হোটেল রেস্তোরায় বসে আড্ডা দিচ্ছে স্বাভাবিক সময়ের মতোই।

চর এলাহীর এক সচেতন ব্যাক্তি বাংলার শিরোনামকে জানান, উপজেলা থেকে চর এলাহী আসার পথে যে স্টিল ব্রীজটি আছে সেটি হেলে পড়ায় প্রশাসনের লোকজন এখানে টহলে আসতে পারে না। সেজন্য এখানকার মানুষ লকডাউনের তোয়াক্কা ও করে না।


শেয়ার করুন