গোপালপুর থানাধীন ১ নারীর বিরুদ্ধে বিয়ের নামে প্রতারণার অভিযোগ,থানায় জিডি

গোপালপুর থানাধীন ১ নারীর বিরুদ্ধে বিয়ের নামে প্রতারণার অভিযোগ, উঠেছে থানায় জিডি (পর্ব-২)

স্টাফঃ রিপোর্টার,টাঙ্গাইল জেলা গোপাপুর থানাধীন বিয়ের নামে প্রতারণনা চালিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা এমন একটি অভিযোগ উঠেছে গোপালপুর থানায় জিডি নং (৩০) বিবাদী খালেদা আক্তার শেখা (৩০) টাঙ্গাইল জেলার, গোপালপুর থানার বাদাইল গ্রামের,শাহজাহানের, মেয়ে খালেদা আক্তার শেখার, নামে গোপালপু, এলাকা সহ বিভিন্ন এলাকায় হাজারো অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঐ নারী বিভিন্ন সময় ভিন্ন ভিন্ন রুপ ধারণ করে দেশে এবং বিদেশে অনেক পরিবারকে নিঃস্ব করে দিয়েছে। ঐ নারী একমাত্র নেশা টাকা, টাকার জন্য সে সব কিছুই করতে পারে। কিন্তু ঐ নারীর প্রধান কৌশল কোন অর্থশালী ব্যক্তির সাথে প্রেম করা,পরে সু-কৌশলে মোটা অংকের দেন মোহর ধার্য করে বিয়ে করা। বিয়ের কিছু দিন পর যেতে না যেতেই বিভিন্ন তালবাহানা শুরু করে। মামলার ভয় দেখিয়ে দেন মোহরের টাকা আদায় করা। এ রকম একাধিক জায়গায় বিবাহ করেন তিনি টাকা আদায় করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে। অনুসন্ধান করে জানা যায় যে খালেদা আক্তার শেখার দুই তিনটি বিয়ে করেন। তার বিরুদ্ধে আরও অভিযোগ আছে যে শেখা আক্তার টাকার নেশায় ইয়াবা ব্যবসার সাথে বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলার আবাসিক হোটেল ও ফ্লাট বাসায় যায়। সেখানে গিয়ে তার রুপ যৌবন দেখিয়ে হাতিয়ে নেন লক্ষ লক্ষ টাকা। দেশের সহজ সরল পুরুষকে প্রমের জালে ফেলে, সুন্দরী রুপসী বলে যে কোন ছেলে তাকে প্রথম দেখাতেই ঐ মহিলার প্রেমে পড়ে যায়। আর সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে শিখা নামের ঐ মহিলা প্রেমের ফাঁদে ফেলে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা, এমনি অভিযোগ করেছে একই এলাকার রেজাউল করিম (৩৫ ) নামের এক ব্যক্তি। ঐ ব্যক্তি জানান আজ থেকে ২ বছর পূর্বে শিখার সাথে আমার পরিচয় হয়। আর আমি শিখার প্রেমে পড়ে যায়। আমার এই দূর্বলতার সুযোগ নিয়ে শিখা আমার নিকট থেকে প্রায় ২৫০০০০(দুই লক্ষ পঞ্চাশ হাজার )টাকা নগদ নেয়। এরপর বিয়ের নামে চলে বিভিন্ন রকম প্রতারনা। ঐ নারী আমার কাছ থেকে টাকা নেওয়ার পর হতে বিভিন্ন রকম তাল বাহানা করে আসছে। তার কাছে আমার টাকা ফেরত চাইলে হুমকি ধমকি ও বিভিন্ন রকম ভয় ভীতি প্রদান করে আসছে, এমনকি আমার বাড়ির উঠানে এসে বিভিন্ন ভোকাত্ত ভাষায় গালিগালাজ করতে লাগে একপর্যায়ে এলাকার লোক জন এসে ঐ নারী কে তারিয়ে দেন, ( ধারাবাহিক চলবে, পর্ব – 2 )

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *