ঢাকা ০৬:৫৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
কাঙ্ক্ষিত মানের জনশক্তি ছাড়া বিপ্লব সাধিত হয় না- মোহাম্মদ আবদুল জব্বার বন্দরের ভয়ঙ্কর ডাকাত সর্দার মামুন গ্রেফতার বাউফলে প্রাণিসম্পদ সপ্তাহ উদ্বোধন করেন আ স ম ফিরোজ বাউফলে মাদক ব্যবসায়ী নাঈম কে ৯৯ পিস ইয়াবা সহ আটক করেছেন থানা পুলিশ  কাজিম উদ্দিন প্রধানের আকস্মিক মৃত্যুতে ফারুক হোসেনের গভীর শোক প্রকাশ বন্দর উপজেলা নির্বাচনে পিতা-পুত্রসহ ৫ চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র জমা ফিলিস্তিনিদের পাশে বিশ্বের সকল মুসলিমদের এগিয়ে আসতে হবে- ডাঃ সৈয়দ আব্দুল্লাহ মোঃ তাহের বাউফল কাশিপুরের অদম্য ১০ ব্যাচের বন্ধুমহলের ইফতার ও দোয়া অনুষ্ঠিত দুমকিতে ১ হাজার অসহায় পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরন অয়ন ওসমানের নেতৃত্বে নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগের ইফতার বিতরন

দুমকীতে শীতের আগমনে ব্যস্ত লেপ-তোষক কারিগররা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:৪৭:৫৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২৩ ৭৬ বার পড়া হয়েছে

দুমকীতে শীতের আগমনে ব্যস্ত লেপ-তোষক কারিগররা

মোঃ রাকিবুল হাসান (দুমকি থেকে)
প্রতিনিধি, দুমকি (পটুয়াখালী): শীতের আগমনে দুমকী উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজারে ব্যস্ত সময়ে পার করছেন লেপ- তোষক তৈরির কারিগর ও ব্যবসায়ীরা। লেপ-তোষকের দোকানে ক্রেতাদের আনাগোনায় সরব হয়ে উঠেছে।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, দুমকী উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজারে অর্ধশতাধিক দোকান রয়েছে। এসকল দোকানে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত কারিগররা বিরতিহীন নিরলস ভাবে নিপুন হাতের শৈল্পিক ছোঁয়ায় নানা নকশায় বাহারি রঙের লেপ, তোষক ও জাজিম তৈরি করছে।
উপজেলার প্রান কেন্দ্রে অবস্থিত পীরতলা বাজারের ব্যবসায়ী সেলিম বিশ্বাস, আবুল কালাম বিশ্বাস ও ফারুক হোসেন, হুমায়ূন কবির জানান, এবছর তুলা, কাপড় ও সুতার দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় লেপ-তোষক তৈরির খরচ বেড়ে গেছে। আঙ্গারিয়া বাজারের ব্যবসায়ী বাদল সরদার জানান, প্রতি জোড়া লেপ- তোষক তৈরিতে কারিগররের মজুরি ৭ থেকে ৮’শ টাকা দিতে হয়। সে হিসেবে সব মিলিয়ে উৎপাদন ৪থেকে সাড়ে ৪ হাজার টাকা খরচ হয়।
মুরাদিয়া বোর্ড অফিস বাজারের লেপ-তোষক ব্যবসায়ী টিটু, ওবায়দুল হাওলাদার ও রশিদ হাওলাদার ও বলেন, শীতের শুরুতে বেচাকেনা খুব ভালো হচ্ছে।
শ্রীরামপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা মোঃ শাহিন হোসেন নামের এক ক্রেতা বলেন, দ্রব্যমূলের ঊর্ধ্বগতির কারণে এ বছর লেপ তোষকের দামও বেড়েছে। তিনি একজোড়া লেপ-তোষক
৬ হাজার টাকায় অর্ডার দিয়ে কিনেছেন বলে জানান।
পবিপ্রবির শিক্ষার্থী তানজিলা তাবাসসুম ও মোঃ ইসমাইল হোসেন একটি সিঙ্গেল তোষক ক্রয়ের সময় বলেন, এবছর দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি কারণে বেশি মূল্যে কিনতে হয়েছে।
মোঃ শহিদুল ইসলাম নামের এক কারিগর বলেন, বাড়ি বাড়ি গিয়ে ৮’শ টাকা মজুরিতে এক জোড়া লেপ-তোষক তৈরি করি।
কেহ যদি অর্ডার দিয়ে তৈরি করাতে চায় সেক্ষেত্রে প্রতি কেজি তুলা ২’শ টাকা, প্রতি কেজি ঝুট ৬০টাকা, লেপের কাপড় ৫০থেকে ৬০ ও তোষকের কাপড় ৫৫ থেকে ৭০টাকায় প্রতি গজ বিক্রি করি। তিনি আরো বলেন, দিনে ৩ জোড়া লেপ-তোষক তৈরি করতে পারি।
আ: রশীদ হাওলাদার নামের এক কারিগর বলেন, দৈনিক ৮’শ টাকা মজুরিতে বিভিন্ন দোকানে লেপ তোষক তৈরির কাজ করি। শীতের আগমনে কাজ কাম বেশি তাই রাতেও কাজ করি।
এছাড়াও শীতের আগমনে এক শ্রেণীর ভাসমান ব্যবসায়ীদের এলাকার প্রত্যন্ত অঞ্চলে ঘুরে ঘুরে লেপ তোষক সহ বিভিন্ন ধরনের শীতের পণ্য বিক্রি করতে দেখা যায়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

দুমকীতে শীতের আগমনে ব্যস্ত লেপ-তোষক কারিগররা

আপডেট সময় : ০৪:৪৭:৫৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২৩

দুমকীতে শীতের আগমনে ব্যস্ত লেপ-তোষক কারিগররা

মোঃ রাকিবুল হাসান (দুমকি থেকে)
প্রতিনিধি, দুমকি (পটুয়াখালী): শীতের আগমনে দুমকী উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজারে ব্যস্ত সময়ে পার করছেন লেপ- তোষক তৈরির কারিগর ও ব্যবসায়ীরা। লেপ-তোষকের দোকানে ক্রেতাদের আনাগোনায় সরব হয়ে উঠেছে।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, দুমকী উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজারে অর্ধশতাধিক দোকান রয়েছে। এসকল দোকানে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত কারিগররা বিরতিহীন নিরলস ভাবে নিপুন হাতের শৈল্পিক ছোঁয়ায় নানা নকশায় বাহারি রঙের লেপ, তোষক ও জাজিম তৈরি করছে।
উপজেলার প্রান কেন্দ্রে অবস্থিত পীরতলা বাজারের ব্যবসায়ী সেলিম বিশ্বাস, আবুল কালাম বিশ্বাস ও ফারুক হোসেন, হুমায়ূন কবির জানান, এবছর তুলা, কাপড় ও সুতার দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় লেপ-তোষক তৈরির খরচ বেড়ে গেছে। আঙ্গারিয়া বাজারের ব্যবসায়ী বাদল সরদার জানান, প্রতি জোড়া লেপ- তোষক তৈরিতে কারিগররের মজুরি ৭ থেকে ৮’শ টাকা দিতে হয়। সে হিসেবে সব মিলিয়ে উৎপাদন ৪থেকে সাড়ে ৪ হাজার টাকা খরচ হয়।
মুরাদিয়া বোর্ড অফিস বাজারের লেপ-তোষক ব্যবসায়ী টিটু, ওবায়দুল হাওলাদার ও রশিদ হাওলাদার ও বলেন, শীতের শুরুতে বেচাকেনা খুব ভালো হচ্ছে।
শ্রীরামপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা মোঃ শাহিন হোসেন নামের এক ক্রেতা বলেন, দ্রব্যমূলের ঊর্ধ্বগতির কারণে এ বছর লেপ তোষকের দামও বেড়েছে। তিনি একজোড়া লেপ-তোষক
৬ হাজার টাকায় অর্ডার দিয়ে কিনেছেন বলে জানান।
পবিপ্রবির শিক্ষার্থী তানজিলা তাবাসসুম ও মোঃ ইসমাইল হোসেন একটি সিঙ্গেল তোষক ক্রয়ের সময় বলেন, এবছর দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি কারণে বেশি মূল্যে কিনতে হয়েছে।
মোঃ শহিদুল ইসলাম নামের এক কারিগর বলেন, বাড়ি বাড়ি গিয়ে ৮’শ টাকা মজুরিতে এক জোড়া লেপ-তোষক তৈরি করি।
কেহ যদি অর্ডার দিয়ে তৈরি করাতে চায় সেক্ষেত্রে প্রতি কেজি তুলা ২’শ টাকা, প্রতি কেজি ঝুট ৬০টাকা, লেপের কাপড় ৫০থেকে ৬০ ও তোষকের কাপড় ৫৫ থেকে ৭০টাকায় প্রতি গজ বিক্রি করি। তিনি আরো বলেন, দিনে ৩ জোড়া লেপ-তোষক তৈরি করতে পারি।
আ: রশীদ হাওলাদার নামের এক কারিগর বলেন, দৈনিক ৮’শ টাকা মজুরিতে বিভিন্ন দোকানে লেপ তোষক তৈরির কাজ করি। শীতের আগমনে কাজ কাম বেশি তাই রাতেও কাজ করি।
এছাড়াও শীতের আগমনে এক শ্রেণীর ভাসমান ব্যবসায়ীদের এলাকার প্রত্যন্ত অঞ্চলে ঘুরে ঘুরে লেপ তোষক সহ বিভিন্ন ধরনের শীতের পণ্য বিক্রি করতে দেখা যায়।