বাউফলে জমিজমার বিরোধের জের ধরে আক্রশমূলক হামলা

বাউফল উপজেলা প্রতিনিধি।পটুয়াখালীর বাউফলে পূর্ব শত্রুতার ও জমিজমার বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষরা আক্রশমূলক ভাবে হামলা চালায়। এতে আব্দুল করিম সিকদার(৪০) কে প্রতিপক্ষরা লাঠিসোঁটা দিয়ে এলোপাতাড়ি মারধর করলে ঘটনাস্থলেই মাটিতে লুটিয়ে পরেন।পরে ঘটনাস্থল থেকে আঃ করিম সিকদারকে স্বজনরা চিকিৎসার জন্য দ্রুত বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায় এবং অসুস্থ অবস্থায় এখনও ভর্তি আছেন।গেল রবিবার (২৮ই আগস্ট) ভোর আনুমানিক ৫:৪০ মিনিটের দিকে উপজেলার কালিশুরী ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ড (উত্তর) পোনাহুড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরে ভুক্তভোগী করিম সিকদার নিজে বাদী হয়ে বাউফল থানার লিখি অভিযোগ করেন।

অভিযোগ সুত্রে যানা যায়, ভুক্তভোগী করিম সিকদার (৪০) ওই দিন রবিবার ভোরে ডাক্তার দেখানোর জন্য ডিসি রোডের দিকে যাচ্ছিলেন।পথিমধ্যে পরিকল্পিত ভাবে দেলোয়ার সিকদারের বসত ঘরের সামনে এলে পূর্বের শত্রুতা ও জমিজমার বিরোধের জের ধরে আব্দুল হাকিম সিকদার (৬৫), মোর্শেদা বেগম (৫০),রাশেদা বেগম(৪৫), ও লামিয়া আক্তার (১৮) পরিকল্পিত ভাবে করিম সিকদার কে অকথ্য ও অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে এবং তা প্রতিবাদ করায় ক্ষিপ্ত হয়ে লাঠিসোঁটা দিয়ে হঠাৎ পিছন থেকে এলোপাতাড়ি পিটালে তাতে শরীরের বিভিন্ন অংশে নীলা ফুলা জখম করে।আতংকিত হয়ে করিম সিকদার ডাকচিৎকার শুরু করলে স্বজনরা আগাইয়া আসলে তাদেরকেও মারধর করা হয়। এতে ভুক্তভোগী করিম সিকদার বেশি আঘাতপ্রাপ্ত হয়।

ভুক্তভোগী করিম সিকদার বলেন,’ প্রতিপক্ষরা আজকে পরিকল্পিত ভাবে ঘটনা ঘটিয়েছে।বিবাদীরা ও আমরা একই বাড়িতে বসবাস করি।জমিজমা নিয়ে দীর্ঘ দিন যাবত আমাদের সাথে বিরোধ চলছে।ইতিপূর্বে তারা পারিবারিক কলহের জের ধরে মারধর করা সহ জীবনাশঙ্কের হুমকিও দিয়েছে। তারা আমাকে মেরেও শান্ত হইনি আমার বৃদ্ধা মাকেও মারধর করে জখম করে এবং দীর্ঘ সময় ধরে ঝগড়া চালাতে থাকে।প্রত্যক্ষ স্বাক্ষীগনের সামনে থেকেই দা,কাছি,লাঠিসোটা দিয়ে জীবনাশঙ্কাের হুমকি দেয়।পরবর্তীতে তারা আমার ও আমার পরিবার কে বিভিন্ন ভাবে ক্ষতি সাধন করতে পারে। আমি আইনের মাধ্যমে সঠিক বিচারের দাবি জানাচ্ছি।

তবে এ ঘটনায় অভিযুক্ত হাকিম সিকদার বলেন,এরা উল্টো আরো আমাকে ও আমার ভাতিজীকে মারধর করেছে।তারা জোরপূর্বক আমাদের জমিজমা ঠকিয়ে খায়।

এ বিষয় বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আল-মামুন বলেন, আঃ করিম সিকদার মারধরের ঘটনায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.