বাউফলে পরিকল্পিত ভাবে ইউপি সদস্যকে মারধর,লক্ষ্যাদিক টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ

এম.সাইদুর রহমান-বাউফল প্রতিনিধি।পটুয়াখালীর বাউফলে পূর্ব শত্রুতা ও রাজনৈতিক কলহের জের ধরে প্রকাশ্য দিবালোকে ইউপি সদস্যর উপর আতর্কিত হামলা ও মারধর করে টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গেল (৪ আগস্ট) বৃহস্পতিবার রাত আনুমানিক ৭:৩০ মিনিটের দিকে উপজেলার কেশবপুর ইউপির চৌমুহনী বাজারে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

সংশ্লিষ্ট সুত্র থেকে যানা যায়,’কেশবপুর ইউপির উত্তর কেশবপুর ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ সাইফুল ইসলাম হাওলাদার (৩৮) এর সাথে প্রতিপক্ষ মোঃ সেলিম ভুঁইয়া (৬০), সাখাওয়াত হোসেন ভুঁইয়া (৩০) ও জিসান ভুঁইয়া (১৮) এর সাথে দীর্ঘ দিন ধরে রাজনৈতিক ও সামাজিক ভাবে বিরোধ চলে আসছে। তাদের মধ্যে মামলা মকর্দমা চলছে।

অভিযোগ সুত্রে থেকে যানা যায়,ওই দিন (বৃহস্পতিবার) পরিকল্পিত ভাবে ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলামের উপরে হামলা করা হয়েছে এবং তার (মেম্বার সাইফুল ইসলাম)’র কাছে থাকা কালভার্টের বরাদ্দ উত্তোলনকৃত (৮৪,৫০০/-) টাকা প্রতিপক্ষরা ছিনিয়ে নেয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মেম্বার সাইফুল ইসলাম পরিষদ থেকে কাজ সেরে নিজস্ব মোটরসাইকেল চালিয়ে কেশবপুর চৌমুহনী বাজারের পেট্রোল তেল ব্যবসায়িক আফজাল হোসেনের দোকানের সামনে গাড়িটি রেখে দাড়ান।হঠাৎ করে পিছন থেকে অভিযুক্ত সাখাওয়াত হোসেন ভুঁইয়া, সেলিম ভুঁইয়া ও জিসান ভুঁইয়া ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলামকে কথা বলার জন্য ডেকে নিয়ে বাজারের মধ্যে প্রকাশ্য দিবালোকে আতর্কিত ভাবে বিদেশি লাইট দিয়ে মাথায় ও পিঠে আঘাত করিয়া নীলা ফুলা জখম করে এবং বিভিন্ন ভাবে সাইফুল ইসলামকে হেস্তনেস্ত করা হয়।

ভুক্তভোগী ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলাম বলেন,আমি গেল ৪ আগস্ট বৃহস্পতিবার পরিষদের (সচিব) জাদব দত্ত এর কাছ থেকে কালভার্ট বরাদ্দের উত্তোলনকৃত (৮৪,৫০০/-) টাকা নিয়ে রওনা হই।কেশবপুর চৌমুহনী বাজারে আসলেই প্রতিপক্ষ সেলিম ভুঁইয়া, সাখাওয়াত হোসেন ভুঁইয়া ও জিসান ভুঁইয়া আমাকে কথা বলার জন্য ডেকে নিয়ে বাজারের মধ্যে প্রকাশ্য দিবালোকে বিদেশি লাইট দিয়ে এলোপাতাড়ি মাথায় ও পিঠে আঘাত করিয়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে বেদনাদায়ক নীলা ফুলা জখম করে এবং আমার সাথে থাকা ব্যাগের মধ্যে রক্ষিত (৮৪,৫০০/-) টাকা সাখাওয়াত হোসেন ভুঁইয়া ছিনিয়ে নিয়ে যায় এবং জিসান ভুঁইয়া আমার পাঞ্জাবির পেকেটে থাকা মোবাইল ফোনটিও নিয়ে যায়।আমি ডাক চিৎকার করিলে আশেপাশের লোকজন আমাকে প্রতিপক্ষদের হাত থেকে রক্ষা করে।

তিনি আরও বলেন,প্রতিপক্ষদের সাথে দীর্ঘ দিন ধরেই আমার সাথে রাজনৈতিক ও সামাজিক ভাবে বিরোধ চলছে আসছে।তারা যে পরিকল্পিত ভাবে এরূপ ঘটনা ঘটাবে আমি বুঝতে পারিনি।আমি আইনের সহায়তা চেয়ে সঠিক বিচারের দাবি জানাচ্ছি।

তবে প্রতিপক্ষ সেলিম ভুঁইয়া ও সাখাওয়াত হোসেন ভুঁইয়াকে না পাওয়ায় তাদের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দিলেও তারা ফোন রিসিভ করেন নাই।

এ বিষয় বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আল-মামুন বলেন,’ লিখিত অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.