ঢাকা ০১:৪৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::

বাউফলে সেফটি ট্যাংকি থেকে মাদ্রাসা ছাত্রের লাশ উদ্ধার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:২৯:২৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২৩ ২০৯ বার পড়া হয়েছে

রিপোর্টার,নুপুর আক্তার,পটুয়াখালীর বাউফলে সেফটি ট্যাংক থেকে আতিকুর রহমান আতিক (১২) নামের এক মাদ্রাসা শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

শনিবার ২/১২/২০২৩ খ্রিঃ সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে উপজেলার কাছিপাড়া ইউনিয়নের পাকডাল মুন্সি বাড়ি জামে মসজিদের সেফটি ট্যাংক থেকে আতিকের লাশ উদ্ধার করা হয়। আতিক বাকেরগঞ্জ উপজেলার দুর্গাপাশা ইউনিয়নের মধ্য জিরাইল গ্রামের সরোয়ার হোসেন সরদারের ছেলে। সে পাকডাল ফজলুর রহমান দারুল উলুম মাদ্রাসার হেফজ বিভাগের শিক্ষার্থী ছিল।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, শনিবার ভোরে
মাদ্রাসার সহপাঠী ও শিক্ষকরা ঘুম

থেকে জেগে আতিকুল ইসলামকে
কোথাও দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুজি শুরু করে। এক পর্যায়ে
মাদ্রাসার অপর এক শিক্ষার্থী ইসমাইল শিক্ষকদের কাছে সেফটি ট্যাংকে আতিকের লাশ লুকিয়ে
রেখে আসার কথা জানায়। সন্ধ্যার পর ওই মসজিদের সেফটি ট্যাংকের
ঢাকনা খুলে আতিকের লাশ উদ্ধার
করা হয়। এ ঘটনায় ইসমাইল (১৮
কে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

কাছিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম বলেন, ইসমাইল তার শিক্ষকদের কাছে আতিকুল ইসলামকে মেরে ফেলার কথা স্বীকার করেছে। কিন্তু আতিকুলের একার পক্ষে ওই সেফটি ট্যাংকে লাশ লুকিয়ে রাখা সম্ভব নয়।

বাউফল থানার ওসি আরিচুল হক বলেন, আতিকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তদন্ত শেষে আসল রহস্য বের হবে।।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

বাউফলে সেফটি ট্যাংকি থেকে মাদ্রাসা ছাত্রের লাশ উদ্ধার

আপডেট সময় : ০৯:২৯:২৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২৩

রিপোর্টার,নুপুর আক্তার,পটুয়াখালীর বাউফলে সেফটি ট্যাংক থেকে আতিকুর রহমান আতিক (১২) নামের এক মাদ্রাসা শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

শনিবার ২/১২/২০২৩ খ্রিঃ সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে উপজেলার কাছিপাড়া ইউনিয়নের পাকডাল মুন্সি বাড়ি জামে মসজিদের সেফটি ট্যাংক থেকে আতিকের লাশ উদ্ধার করা হয়। আতিক বাকেরগঞ্জ উপজেলার দুর্গাপাশা ইউনিয়নের মধ্য জিরাইল গ্রামের সরোয়ার হোসেন সরদারের ছেলে। সে পাকডাল ফজলুর রহমান দারুল উলুম মাদ্রাসার হেফজ বিভাগের শিক্ষার্থী ছিল।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, শনিবার ভোরে
মাদ্রাসার সহপাঠী ও শিক্ষকরা ঘুম

থেকে জেগে আতিকুল ইসলামকে
কোথাও দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুজি শুরু করে। এক পর্যায়ে
মাদ্রাসার অপর এক শিক্ষার্থী ইসমাইল শিক্ষকদের কাছে সেফটি ট্যাংকে আতিকের লাশ লুকিয়ে
রেখে আসার কথা জানায়। সন্ধ্যার পর ওই মসজিদের সেফটি ট্যাংকের
ঢাকনা খুলে আতিকের লাশ উদ্ধার
করা হয়। এ ঘটনায় ইসমাইল (১৮
কে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

কাছিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম বলেন, ইসমাইল তার শিক্ষকদের কাছে আতিকুল ইসলামকে মেরে ফেলার কথা স্বীকার করেছে। কিন্তু আতিকুলের একার পক্ষে ওই সেফটি ট্যাংকে লাশ লুকিয়ে রাখা সম্ভব নয়।

বাউফল থানার ওসি আরিচুল হক বলেন, আতিকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তদন্ত শেষে আসল রহস্য বের হবে।।