স্বপ্নের পদ্মা সেতু

বিষাদের তিক্ততা, কবি সালমা জাহান

মু. সাইফুল ইসলাম: লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি:

এই যে মানুষ কাঁদে!

এই যে মানুষ আশায় থাকে!

এই যে মানুষ হতাশ হয়ে ফিরে আসে!
এই যে স্বর্গের সুখ ছেড়ে নরকের উত্তপ্ত বহ্নি বেছে নেই!
সব- ই কি মেকি?
ধ্বংস প্রাপ্ত এক অধ্যায়ের শেষাংশে শুধুই বিষাদের তিক্ততা।

কিছু স্মৃতি আড়ালে তুলে বিদ্রোহ করার সাদ জাগে।
সে সাদের সীমানা নেই,
অস্তিত্ব নেই,
পুরুত্ব নেই।
অথচ তার ধেয়ে চলা আড়াল করে মনের যত ক্লেশ।
অচেনা গলিতে কিছুদূর হেঁটে ক্লান্ত হয় পথিক।
পথিকের পথ হয় দীর্ঘস্থায়ী।
তার শেষ গন্তব্য বেড়ে উঠে নিজের চলার তাগিদে।

ধ্বংস প্রাপ্ত কিছু স্মৃতি তাড়া করে বেড়ায় মনের অজান্তে।
যার ধ্বংস অনিবার্য-তাকে ফেরানোর সাধ্য কি আছে কারো?
তবে কেনো এত অহমিকা,
এত শত আয়োজন,
এত শত বিষাদের আনাগোনা,
এরপর আসে শেষ গন্তব্যের দুয়ার উন্মুক্ত করার পালা।
সে পথ না হয় রুদ্ধই ছিল,
তাকে প্রাণ দেওয়ার আদোও কি কোনো প্রলোভন ছিল?

এত শত পথ পাড়ি দেওয়ার অদম্য ইচ্ছে!
বলছিনা এ পথ তোমার জন্য সুখের নয়,
এভাবে আড়াল থেকে না বের হয়ে পথ বেছে নেওয়া বোকামি।

তবুও মানুষ আশায় বাঁচে,
নতুন করে ঘর বাঁধে,
তিক্ততাকে আড়ালে সরায়,
এভাবে ভাবনারা ভীড় জমায় ক্ষুদ্র মস্তিষ্কে।
অবাঞ্চিত কিছু দুঃখ নিমিষেই অন্যত্র পাড়ি জমায়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.