স্বপ্নের পদ্মা সেতু

রাজধানীর কদমতলী থেকে অপহৃত শিশু উদ্ধারসহ ৫ অপহরনকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

স্টাফ রিপোর্টার মনির হোসেনঃ রাজধানীর কদমতলী থেকে মোঃ ওমর ফারুক নামে তিন বছরের শিশু অপহরনের ৮ দিন পরে মানিকগঞ্জের ঘিওর থেকে উদ্ধারসহ ৫ অপহরনকারীদের গ্রেফতার করে পুলিশ।

এ বিষয় ওয়ারী বিভাগের উপ পুলিশ কমিশনার শাহ ইফতেখার আহমেদ তার কার্যালয় সাংবাদিকদের জানান,গত (৫ আগষ্ট) সকাল ১০ টায় অপহৃত শিশুর বাবা মোঃ মেহেদী হাসান কদমতলী থানায় একটি অভিযোগ করেন যে তার শিশু সন্তান হারিয়ে গিয়েছে। অভিযোগের পরি পেক্ষিতে কদমতলী থানা পুলিশ ৫৫ টি সিসি টিভি ফুটেজ ও তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে গত ১৩ আগষ্ট ধারাবাহিক অভিযানের পর মোঃ আলিমকে জুরাইন রেলগেট থেকে আটক করে। তার দেওয়া তথ্য মতে ঢাকার ধামরাই থানাধীন নান্না সোয়াপুর থেকে সজিব চন্দ্র দাস ও শ্যামা মনি দাসকে আটক করে। এরপর তাদের দেওয়া তথ্যমতে গতকাল গভীর রাতে মানিকগঞ্জের ঘিওর থানাধীন উওর শ্রী বাড়ী হতে বাবুল সরকার ও তার স্ত্রী মিনুকা রানীকে আটক করে পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে শিশুটি উদ্ধার করা হয়।
পরবর্তীতে অপহন হওয়া শিশুকে তার বাবা-মার কাছে ফেরত দেয়া হয়। হারানো শিশুকে ফিরে পেয়ে বাবা-মা অত্যন্ত খুশি হন এবং পুলিশের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
কদমতলী থানা অফিসার ইনচার্জ জামাল উদ্দিন মীর বলেন, এ বিষয়ে অপহৃত শিশুর বাবা মোঃ মেহেদী হাসান বাদী হয়ে কদমতলী থানায় একটি মামলা অপহৃরন ও অপহৃরন সহায়তা করায় একটি মামলা দায়ের করেন। যার নং-৩০পুলিশ আসামীদেরকে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালত আবেদন করলে আদালত দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
শ্যামপুর জোনের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার কাজী রোমানা নাসরিন, শ্যামপুর জোনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার শাহ আলম, কদমতলী থানার অফিসার ইনচার্জ জামাল উদ্দিন মীর, পিপিএম, কদমতলী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সজীব দে, কদমতলী থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) জাকির হোসাইন, পিপিএম ও তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ইমরুল হাসানের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এই অভিযান পরিচালনা করে শিশুটিকে উদ্ধার কর হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.