ঢাকা ০১:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::

আড়াইহাজার উপজেলা নির্বাচনে হুইপ নজরুলের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ১০:১৪:০৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪ ৬১ বার পড়া হয়েছে

হুইপ নজরুলের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

আড়াইহাজার উপজেলা নির্বাচনে হুইপ নজরুলের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

আসন্ন আড়াইহাজার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জাতীয় সংসদের মাননীয় চীফ হুইপ জনাব নজরুল ইসলাম বাবুর প্রভাব নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন আলহাজ্ব শাহজালাল মিয়া দোয়াত কলম মার্কার চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী।

তিনি বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকায় মোট ১৩৯ টি কেন্দ্র রয়েছে এর মধ্যে কালাপাহাড়িয়া একটি দুর্গম এলাকা ছাড়া ফতেপুর, ব্রাহ্মন্দী মামুদপুর ইউনিয়ন ও গোপালদী পৌরসভা আরো কিছু এলাকার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সন্ত্রাসীদের মাধ্যমে পেশি শক্তি প্রদর্শন জাল ভোট ও নাশকতা মূলক কার্যক্রম পরিচালনার প্রস্তুতি গ্রহণ করেছেন।

আমার নির্বাচনী মার্কা দোয়াত কলম প্রতীকের কোন পোলিং এজেন্ট নিয়োগ দেওয়া যাবে না বলে জাতীয় সংসদের মাননীয় চীফ হুইপ জনাব নজরুল ইসলাম বাবু তার অনুসারীদেরকে ঘোষণা দিয়েছেন। তার ফলে এলাকায় সাধারণ ভোটারদের মাঝে এক আতঙ্ক অস্থিরতা বিরাজমান, যেকারণে সুষ্ঠু ভোটের পরিবেশ শঙ্কা দেখা দিয়েছে। ভোটাররা ভাবছেন তাদের ভোটাধিকার তারা সঠিকভাবে প্রয়োগ করতে পারবে কিনা। এতে যারা আমার কর্মী তারা ভোটের দিন পোলিং এজেন্ট হতে ভয় পাচ্ছে তারা তাদের জানমালের কথা ভাবছে।

আড়াইহাজার উপজেলা নির্বাচনে হুইপ নজরুলের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

ইতিপূর্বে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও জেলা রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগ করেও কোন ধরনের কার্যকরী পদক্ষেপর দেখা যায়নি।

মাননীয় হুইপ মহোদয় রাজনৈতিক ও সামাজিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আমাকে নিয়ে ইঙ্গিত পূর্ণ বক্তব্য দেয় এবং তার প্রিয় প্রার্থী ঘোড়া মার্কা প্রতীকের পক্ষে ভোট চান যা নির্বাচনী আচরণ বিধির লঙ্ঘন। ইতি পূর্বে মাননীয় হুইপ মহোদয় ও তার স্ত্রীর সাথে সম্পৃক্ত বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মকর্তাগণ সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন, ঠিক তারাই আবার পোলিং অফিসার ও প্রিজাইডিং অফিসার। আমি আপত্তি জানালে তারা নির্বাচনী কার্যক্রমে বহাল রয়েছেন। এমন অবস্থায় আমি সাংবাদিক বন্ধুগণের মাধ্যমে আবেদন জানাচ্ছি মাননীয় চিফ হুইপ কে ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী থেকে নির্বাচনী প্রচারণা দোয়াত কলমের কর্মীদেরকে ভয়-ভীতি দেখানোর থেকে বিলম্বে বিরত থাকতে ব্যবস্থা করা হোক।

সকল বিতর্কিত প্রিজাইডিং অফিসার ও সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার দের অন্যত্র প্রত্যাহার করার দাবি জানাচ্ছি সেই সাথে সর্বোচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ কালাপাহাড়িয়া ফতেহ পুর ব্রাহ্মন্দী গোপালদী মাহমুদপুর ইউনিয়নের সকল কেন্দ্রে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ও সর্বোচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতে সার্বক্ষণিকভাবে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের জন্য সবিনয়ভাবে আবেদন করছি। আপনাদের মাধ্যমে আরো জানাচ্ছি একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের পক্ষে অবিলম্বে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য আপনারা আপনাদের পক্ষ থেকে প্রশাসনিক আমার পক্ষ থেকে নির্বাচন কমিশনারের প্রতি আপনারা জোরালোভাবে আবেদন জানাবেন। যেন আগামী একুশে মে সুন্দর সুষ্ঠু অবাধ ও উৎসব মুখ নির্বাচন হয় আড়াই হাজার উপজেলার সর্বস্তরের তিন লক্ষ ৪০ হাজার ভোটার রা ভোট প্রয়োগের মাধ্যমে সঠিকভাবে তাদের জনপ্রতিনিধি বাছাই করতে পারেন সেই জন্য আমার সাংবাদিক বন্ধু মিডিয়ার মাধ্যমে সেই সহযোগিতা কামনা করছি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চেয়ারম্যান হ্যালো সরকার, সাবেক রাষ্ট্রদূত মোঃ মমতাজ, ও কৃষিবিদ ডক্টর হাবিবুর রহমান মোল্লা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

আড়াইহাজার উপজেলা নির্বাচনে হুইপ নজরুলের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

আপডেট সময় : ১০:১৪:০৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪

আড়াইহাজার উপজেলা নির্বাচনে হুইপ নজরুলের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

আসন্ন আড়াইহাজার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জাতীয় সংসদের মাননীয় চীফ হুইপ জনাব নজরুল ইসলাম বাবুর প্রভাব নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন আলহাজ্ব শাহজালাল মিয়া দোয়াত কলম মার্কার চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী।

তিনি বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকায় মোট ১৩৯ টি কেন্দ্র রয়েছে এর মধ্যে কালাপাহাড়িয়া একটি দুর্গম এলাকা ছাড়া ফতেপুর, ব্রাহ্মন্দী মামুদপুর ইউনিয়ন ও গোপালদী পৌরসভা আরো কিছু এলাকার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সন্ত্রাসীদের মাধ্যমে পেশি শক্তি প্রদর্শন জাল ভোট ও নাশকতা মূলক কার্যক্রম পরিচালনার প্রস্তুতি গ্রহণ করেছেন।

আমার নির্বাচনী মার্কা দোয়াত কলম প্রতীকের কোন পোলিং এজেন্ট নিয়োগ দেওয়া যাবে না বলে জাতীয় সংসদের মাননীয় চীফ হুইপ জনাব নজরুল ইসলাম বাবু তার অনুসারীদেরকে ঘোষণা দিয়েছেন। তার ফলে এলাকায় সাধারণ ভোটারদের মাঝে এক আতঙ্ক অস্থিরতা বিরাজমান, যেকারণে সুষ্ঠু ভোটের পরিবেশ শঙ্কা দেখা দিয়েছে। ভোটাররা ভাবছেন তাদের ভোটাধিকার তারা সঠিকভাবে প্রয়োগ করতে পারবে কিনা। এতে যারা আমার কর্মী তারা ভোটের দিন পোলিং এজেন্ট হতে ভয় পাচ্ছে তারা তাদের জানমালের কথা ভাবছে।

আড়াইহাজার উপজেলা নির্বাচনে হুইপ নজরুলের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

ইতিপূর্বে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও জেলা রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগ করেও কোন ধরনের কার্যকরী পদক্ষেপর দেখা যায়নি।

মাননীয় হুইপ মহোদয় রাজনৈতিক ও সামাজিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আমাকে নিয়ে ইঙ্গিত পূর্ণ বক্তব্য দেয় এবং তার প্রিয় প্রার্থী ঘোড়া মার্কা প্রতীকের পক্ষে ভোট চান যা নির্বাচনী আচরণ বিধির লঙ্ঘন। ইতি পূর্বে মাননীয় হুইপ মহোদয় ও তার স্ত্রীর সাথে সম্পৃক্ত বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মকর্তাগণ সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন, ঠিক তারাই আবার পোলিং অফিসার ও প্রিজাইডিং অফিসার। আমি আপত্তি জানালে তারা নির্বাচনী কার্যক্রমে বহাল রয়েছেন। এমন অবস্থায় আমি সাংবাদিক বন্ধুগণের মাধ্যমে আবেদন জানাচ্ছি মাননীয় চিফ হুইপ কে ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী থেকে নির্বাচনী প্রচারণা দোয়াত কলমের কর্মীদেরকে ভয়-ভীতি দেখানোর থেকে বিলম্বে বিরত থাকতে ব্যবস্থা করা হোক।

সকল বিতর্কিত প্রিজাইডিং অফিসার ও সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার দের অন্যত্র প্রত্যাহার করার দাবি জানাচ্ছি সেই সাথে সর্বোচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ কালাপাহাড়িয়া ফতেহ পুর ব্রাহ্মন্দী গোপালদী মাহমুদপুর ইউনিয়নের সকল কেন্দ্রে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ও সর্বোচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতে সার্বক্ষণিকভাবে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের জন্য সবিনয়ভাবে আবেদন করছি। আপনাদের মাধ্যমে আরো জানাচ্ছি একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের পক্ষে অবিলম্বে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য আপনারা আপনাদের পক্ষ থেকে প্রশাসনিক আমার পক্ষ থেকে নির্বাচন কমিশনারের প্রতি আপনারা জোরালোভাবে আবেদন জানাবেন। যেন আগামী একুশে মে সুন্দর সুষ্ঠু অবাধ ও উৎসব মুখ নির্বাচন হয় আড়াই হাজার উপজেলার সর্বস্তরের তিন লক্ষ ৪০ হাজার ভোটার রা ভোট প্রয়োগের মাধ্যমে সঠিকভাবে তাদের জনপ্রতিনিধি বাছাই করতে পারেন সেই জন্য আমার সাংবাদিক বন্ধু মিডিয়ার মাধ্যমে সেই সহযোগিতা কামনা করছি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চেয়ারম্যান হ্যালো সরকার, সাবেক রাষ্ট্রদূত মোঃ মমতাজ, ও কৃষিবিদ ডক্টর হাবিবুর রহমান মোল্লা।